বাংলাদেশ পুলিশ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ও আবেদন

Police Job Circular. আপনি কি বাংলাদেশ পুলিশ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ও আবেদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চান? তাহলে আর্টিকেলটি আপনার জন্য। আর্টিকেলটি পড়লে আপনি বাংলাদেশ পুলিশের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ও আবেদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন। বাংলাদেশ পুলিশ হচ্ছে, বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা। এই সংস্থাটি বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত হয়ে থাকে। চুরি-ডাকাতি রোধ, ছিনতাই প্রতিরোধ, দাঙ্গা-হাঙ্গামা ইত্যাদি সমাজ বিরোধী কর্মকান্ড প্রতিরোধসহ আরো বিভিন্ন কাজে  বাংলাদেশ পুলিশ অংশগ্রহণ করে থাকে। বাংলাদেশ পুলিশে পুরুষ ও নারী উভয়ই চাকরি করতে পারবে।

বাংলাদেশ পুলিশ নিয়োগ

আমাদের মধ্যে অনেকেই বাংলাদেশ পুলিশে নিজেদের ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহী। কেননা এটি একটি সম্মানজনক পেশা। পুলিশ বিভাগে মূলত চার ধরণের ক্যাটাগরিতে চাকরি রয়েছে। চার ধরনের ক্যাটাগরি হলো: সহকারী পুলিশ সুপার, সাব ইন্সপেক্টর, সার্জেন্ট এবং কনস্টেবল। নিচে চারটি বিভাগের নিয়োগ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হলোঃ

সহকারী পুলিশ সুপার (ASP)

সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ ক্যাটাগরির চাকরি। সরাসরি নিয়োগের জন্য যেসব শর্ত প্রযোজ্য তা নিচে দেওয়া হল:

শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতকোত্তর বা 4 বছর মেয়াদের ডিগ্রি।

বয়স এবং উচ্চতা: জেনারাল এবং কোটা (পুরুষ) বয়স: 21-30 বছর, উচ্চতা: 5’4 ’’।
মুক্তিযোদ্ধা কোটা (পুরুষ) বয়স: 21-32 বছর, উচ্চতা: 5’4 ’’।
জেনারেল কোটা (মহিলা) বয়স: 21-30 বছর, উচ্চতা: 5 ‘।
মুক্তিযোদ্ধা কোটা (মহিলা) বয়স: 21-32 বছর, উচ্চতা: 5 ‘।

পরীক্ষা: বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন কর্তৃক নির্ধারিত পরীক্ষা নেওয়া হবে। লিখিত পরীক্ষার মোট নাম্বার 900, মেীখিক পরীক্ষার মোট নাম্বার 200।

প্রশিক্ষণ: বেসিক প্রশিক্ষণ ১ বছর এবং Field Attachment 0৬ মাস।

নিয়োগ দিবে: গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ।

police job circular

>>বিকাশ অ্যাপ ইন্সটল করলেই পাবেন  ১০০ টাকা বোনাস! নতুন বিকাশ অ্যাপ থেকে নিজের একাউন্ট খুলুন মিনিটেই, শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। কোথাও যেতে হবে না!

Bkash App Download Link

 

উপ-পরিদর্শক (SI)

উপ-পরিদর্শক বা SI হলেন বাংলাদেশ পুলিশের নন-ক্যাডার মধ্য স্তরের চাকরি। সরাসরি নিয়োগের জন্য যেসব শর্ত প্রযোজ্য তা নিচে দেওয়া হল:

শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি।

বয়স এবং উচ্চতা: জেনারেল কোটা (পুরুষ) বয়স: 19-27 বছর, উচ্চতা: 5’4 ’’।
মুক্তিযোদ্ধা কোটা (পুরুষ) বয়স: 19-32 বছর, উচ্চতা: 5’4 ’’।
জেনারেল কোটা (মহিলা) বয়স: 19-27 বছর, উচ্চতা: 5’2 ’’।
মুক্তিযোদ্ধা কোটা (মহিলা) বয়স: 19-32 বছর, উচ্চতা: 5’2 ’’।

পরীক্ষা: বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক নির্ধারিত বিষয়সমূহে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। লিখিত পরীক্ষার মোট নাম্বার -২২৫ এবং মেীখিক পরীক্ষার মোট নাম্বার -১০০।

প্রশিক্ষণ: এক বছর মেয়াদি প্রশিক্ষণ এবং Field Attachment এক বছর।

নিয়োগ দিবে: পুলিশ সুপার।

 

সার্জেন্ট (Sergeant)

সার্জেন্ট হল বাংলাদেশ পুলিশের মধ্য স্তরের চাকরি। সরাসরি নিয়োগের জন্য যেসব শর্ত প্রযোজ্য তা নিচে দেওয়া হল:

শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি।

বয়স এবং উচ্চতা: জেনারাল (পুরুষ) বয়স: 19-27, উচ্চতা: 5’8 ’’।
মুক্তিযোদ্ধা (পুরুষ) বয়স: 19-32, উচ্চতা: 5’6 ’’।

পরীক্ষা: বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক নির্ধারিত বিষয়সমূহে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। লিখিত পরীক্ষার মোট নাম্বার-২৫০ এবং মেীখিক পরীক্ষার মোট নাম্বার -৫০।

প্রশিক্ষণ: প্রায় ছয় মাস এবং Field Attachment প্রায় ছয় মাসের প্রাথমিক প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

নিয়োগের কর্তৃপক্ষ: সহকারী পুলিশ মহাপরিদর্শক বা পুলিশ সুপার।

কনস্টেবল (Constable)

কনস্টেবল বাংলাদেশ পুলিশের প্রাথমিক স্তরের চাকরি। সরাসরি নিয়োগের জন্য যেসব শর্ত প্রযোজ্য তা নিচে দেওয়া হল:

শিক্ষাগত যোগ্যতা: এসএসসি বা সমমানের ডিগ্রি।

বয়স এবং উচ্চতা: জেনারেল কোটা (পুরুষ) বয়স: 18-20 বছর, উচ্চতা: 5’6 ’’।
মুক্তিযোদ্ধা কোটা (পুরুষ) বয়স: ১৮-৩২ বছর, উচ্চতা: ৫’৪ ’’।
জেনারেল কোটা (মহিলা) বয়স: ১৮-২০ বছর, উচ্চতা: ৫’২ ’’।
মুক্তিযোদ্ধা (মহিলা) বয়স: ১৯-৩২ বছর, উচ্চতা: ৫’২ ’’।
উপজাতি কোটা (পুরুষ) বয়স: ১৮-২০ বছর, উচ্চতা: ৫’৪ ”।

পরীক্ষা: বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক নির্ধারিত বিষয়সমূহে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। লিখিত পরীক্ষার মোট নাম্বার -৪০ এবং মেীখিক পরীক্ষার নাম্বার -২০।

প্রশিক্ষণ: ছয় মাস বেসিক প্রশিক্ষণ।

নিয়োগ দিবে: পুলিশ সুপার।

Police Job Circular

বাংলাদেশ পুলিশের সকল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আমাদের ওয়েবসাইটে পাবেন। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখে আপনি খুব সহজেই আবেদন করতে পারবেন। নিচে বাংলাদেশ পুলিশের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হলো:

police job circular 2020

 

বাংলাদেশ পুলিশ আবেদন ও নিয়োগ প্রক্রিয়া

বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারেন। অনলাইনে আবেদন করার ঠিকানা হচ্ছে- https://www.police.gov.bd। আবেদন করার পর পর্যায়ক্রমে পরীক্ষার মাধ্যমে নিয়োগ দেওয়া হবে।  পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের জন্য প্রার্থীকে তিন ধরনের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। বাংলাদেশ পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের জন্য শারীরিক পরীক্ষা, লিখিত পরীক্ষা এবং মৌখিক পরীক্ষার বিস্তারিত নিয়ম নিচে দেওয়া হলো ।

শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষা: প্রার্থীকে প্রথমে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত স্থান ও সময়ে শারীরিক মাপ দিতে হবে। তারপর শারীরিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। উত্তীর্ণ প্রার্থীদের প্রবেশপত্র প্রদান করা হবে।  লিখিত পরীক্ষার স্থান ও সময় জানিয়ে দেওয়া হবে।

লিখিত পরীক্ষা: শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ১ ঘন্টা ৩০ মিনিটের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। লিখিত পরীক্ষার নাম্বার ৪০। কমপক্ষে ৪৫% নম্বর প্রাপ্ত প্রার্থীগণ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবেন।

মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষা: লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের নির্দিষ্ট তারিখে ২০ নম্বরের একটি মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। আলাদাভাবে কমপক্ষে ৪৫% নম্বর প্রাপ্ত প্রার্থীরা উত্তীর্ণ বলে গণ্য করা হবে।

আশা করছি, বাংলাদেশ পুলিশে নিয়োগ এবং Police Job Circular সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারছেন। আপনার যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমার আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।

8 Comments

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *