বিজনেস আইডিয়া জেনে নিন রিচার্জ করার ব্যপসা আইডিয়া। গ্রামীণ, বাংলালিংক, রবি, এয়ারটেল, টেলিটক সিম রিচার্জ তথ্য

আসসালামু আলাইকুম বন্ধুরা আশা করি সবাই ভাল আছেন সুস্থ আছেন দোয়া করি ভাল থাকেন সুস্থ থাকেন। আজকের টাইটেল দেখে অনেকে বুঝে গেছেন যে আমার আজকে আর্টিকেলটি বিজনেস আইডিয়া সম্পর্কে। শুরুতে আগে আমি একটা কথা বলতে চাই আমি আজ থেকে আমার এই ব্লগে বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা বা বিজনেস আইডিয়া দেব জাস্ট আইডিয়া। এখান থেকে আপনারা আইডিয়া নেন আপনার এই ব্যবসায়ী করতে হবে তা কিন্তু নয়। আপনারা এখান থেকে যতটুকু পারেন আইডিয়া নেন। যদি আইডিয়া দেখে মনে করেন আপনি সময় দিতে পারবেন এই ব্যবসাটা আপনার জন্যই প্রযোজ্য, আপনি পছন্দ করেন তাহলে আপনি করতে পারেন। আমার আর্টিকেল দেখে বা কথামতো না বা পার্শ্ববর্তী কারও বিজনেস দেখে আপনি ব্যবসা করবেন না, যেখানে আপনি মনোযোগ দিতে পারবেন সেখানে ব্যবসাটা করবেন।

ফ্লেক্সিলোডের ব্যপসাঃ

আজকে আপনাদের বোঝাবো যে ফ্লেক্সিলোডে কয় টাকা কমিশন কয় টাকা লাগে a2z। বন্ধুরা একটু কষ্ট করে আর্টিকেলটা পরতে থাকুন অবশ্যই আপনার ফ্লেক্সিলোডের এটুজেট জানতে পারবেন যে কিভাবে আসলেই বিজনেস টা করা যায় এবং সহজ পদ্ধতি করা যায় বিস্তারিত।

ব্যবসা করতে কি কি লাগবেঃ

যে কোন ব্যবসা করতে প্রথমে একটা ট্রেড লাইসেন্স লাগবে। দ্বিতীয়ত লাগবে একটা দোকান। এই ফ্লেক্সিলোডের ব্যবসা টা দেখা যায় যে আপনি যেকোন দোকান সাথে করতে পারবেন যে কোন দোকানের সাথে ফ্লেক্সিলোডের ব্যবসা করা যায়। কিন্তু ইদানিং দেখা যাচ্ছে ফ্লেক্সিলোডের সাথে বিকাশ, রকেট, নগদ, বিভিন্ন কোম্পানি নিয়ে যদি একটা ছোটখাটো শোরুম বা দোকান নেওয়া যায় তাহলে ভালো একটা অবস্থান করা যায়। তো আজকে আপনাদের জানাবো ফ্লেক্সিলোডের বিজনেস আইডিয়া টা। এখানে মূলত লাগবে পাঁচটি কোম্পানি ধরেছি মূলত কি কি লাগবে?

১. ট্রেড লাইসেন্স লাগবে।
২. ৫টা মোবাইল সেট লাগবে যেহেতু পাঁচটা কোম্পানি এজন্য।
৩. ইনভেস্ট করা লাগবে

এখানে ইনভেস্ট করার জন্য মোটামুটি আমি আইডিয়া করে রেখেছি। ৩৫ থেকে ৪০ হাজার টাকা ইনভেস্ট করলে আপনি ফ্লেক্সিলোড সাথে সিম বিক্রির ব্যবস্থা করতে পারবেন। এখানে কি কি কোম্পানি লাগবে দেখুন যেহেতু আমারা বাংলাদেশি এজন্য কোম্পানি গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, রবি, এয়ারটেল, টেলিটক, এখন এগুলার ইনভেস্ট টা কেমন দেখুন। প্রতিটা কম্পানি কিন্তু কম বেশি চলে। সবার কিন্তু সমান চলে না এর মধ্যে বেশির ভাগ ভালো চলে গ্রামীণফোন দ্বিতীয় বাংলালিংক তৃতীয় রবি তারপর এয়ারটেল এবং টেলিটক। এখানে দেখা যায় ডিলার যারা আছেন এবং কোম্পানি থেকে যারা আসেন এসআর আমার জানা মতে সপ্তাহে তিন দিন আপনার দোকানে আসবে। আপনাকে কমপক্ষে দুদিনের টাকা রাখতে হবে। আপনার দোকানে এসে তারা টাকা দিয়ে যাবে। সেই হিসাবমতে আমরা হিসাব করে দেখেছি যে প্রতিদিন যদি আপনি গরে ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা সেল করেন সেই হিসেবে ২৪০০০ টাকা লাগবে আপনার লোডোর ইনভেস্ট। আর লাগবে পাঁচটি মোবাইল সেট যদি কমদামি সেট কেনেন তাহলে ৮০০ টাকার নিচে ভালো সেট পাবেন না। তাহলে ৮০০ টাকা করে সেট হলে ৫×৮০০=৪০০০টাকা।

এখন লোডোর খেত্রে ১২০০০টাকা যেমন গ্রামীনফোনে ৫০০০টাকা লোড দিলেন,বাংলালিংক দিলেন ৩০০০টাকা, রবিতে ২০০০টাকা, এয়ারটেল এ ১০০০টাকা, টেলিটক এ ১০০০টাকা, গরে ১২০০০ টাকা। তারমানে আপনার দুদিনের টাকা লোড রাখতে হলে ২৪০০০ টাকা আপনার লোডের ইনভেস্ট লাগবে। এটা ধরা হয়েছে আপনি যদি প্রতিদিন ১০০০০-১২০০০ সেল করতে পারেন তাহলে। কেউ কেউ বেশি করেন করতে পারেন তাহলে বেশি ইনভেস্ট লাগবে যদি কম করেন তাহলে কোম ইনভেস্ট লাগবে। ইনভেস্ট টা হচ্ছে আপনার সেলের উপরে। আপনি কোথায় পজিশন নিচ্ছেন পজিশন টা নিতে হবে লোকালয় যেখানে দেখা যায় অনেক রাত লোক থাকে বা যেখানে লোকালয় বেশি আবার কিছু এলাকা আছে যেখানে সবসময় আড্ডা হয় বা কিছু ভিআইপি রোড আছে যেখানে লোড নাই মানে আপনাকে গ্যাপ দেখে করতে হবে।

আপনার সাথে যেন মানুষের ব্যবহারটা ভাল হয় অনেক সময় দেখা যায় যে আপনার পরিচিত কেউ বাসা থেকে বলবে যে ভাই আমার নাম্বারে এত টাকা লোড দিন আপনি লোড দিয়ে দিলেন এরকম। অবশ্য এমন লোককে লোড বাকি দিবেন যে কোথা দিয়ে কথা রাখে। আমি দেখছি আপনি এখানে ৩৫-৪০ হাজার টাকা ইনভেস্ট করলে ফ্লেক্সিলোড এবং সিম বিক্রি ইনশাল্লাহ খুব ভালোভাবে করতে পারবেন।

লোডের ব্যপসায় কিছু নাম যেমন গ্রামীণকে ফ্লেক্সিলোড বাংলালিংক কে বলে টপ-আপ রবিকে বলে ইজিলোড এরকম কোম্পানির নাম আছে তো আমরা আসলে ফ্লাক্সিলোড বলে থাকি সবগুলোই মিলেই একটা লোডের বিজনেস।

কত টাকা লাভ হবেঃ

এবার আসি লাভাংশ দিক থেকে লাভ কেমন হয়। মূলত এখানে ১০০০ টাকা সেল হলে লাভ হয় মাত্র ২৭ টাকা ৫০ পয়সা আপনি পাবেন। আপনি গ্রামীণফোন বাংলালিংক রবি এয়ারটেল যে কোম্পানি সেল করেন না কেন পুরো টাকার উপর আপনি পার হাজারে ২৭ টাকা ৫০ পয়সা পাবেন। ২.৫% দেয়।

জিপি অফারঃ

এখন এখানে আরো কিছু লাভাংশ আছে যেমন এখানে জিপিতে ৫৯ টাকা যখন লোড দেবেন তখন অটোমেটিক আপনার একাউন্টে ৫০পয়সা চলে আসবে। আর ৫৪ টাকা লোড দিলে ৫০পয়সা চলে আসবে ৬৭টাকা লোড দিলে ২টাকা চলে আসবে ৬৯ টাকা লোড দিলে ৪টাকা চলে আসবে ১৯৯ টাকা লোড দিলে ৩টাকা চলে আসবে ২৯৮ টাকা লোড দিলে ৪টাকা চলে আসবে আবার ৪৮৮ টাকা লোড দিলে ৫০ টাকা চলে আসবে ১৬৮ টাকা লোড দিলে ৩টাকা চলে আসবে। এই যে এমাউন্ট গুলা আপনার অরজিনাল কমিশন বাদে এক্সট্রা আপনি যখনি রিচার্জ করবেন সাথে সাথে এই কমিশন গুলা একাউন্টে চলে আসে।

বাংলালিংক আফারঃ

এবার বাংলালিংক আফার ৪৭ টাকায় ৩ টাকা ৫৭ টাকা ৩ টাকা ১৮৭ টাকায় ৭ টাকা ১৯৭ টাকয় ১৫টাকা ২৯৭ টাকায় ৩০ টাকা। এগুলো হলো আপনার মিনিটের প্যাকেজ আছে মেগাবাইট ইন্টারনেট প্যাকেজ আছে।

রবি অফারঃ

এরকম রবিতেও আছে। যেমন ১৩৯ টাকায় ১৫ থেকে ২৫ টাকা পর্যন্ত কমিশন দেয়। আবার ১৫৪ টাকায় ১৫ থেকে ২৫ টাকা পর্যন্ত কমিশন দেয়। ৩৪৯ টাকায় ৫০ থেকে ৮০ টাকা পর্যন্ত কমিশন দেয়। আবার ৫৯৯ টাকা ১৫০ টাকা পর্যন্ত কমিশন দেয়। ২৮৮ টাকায় ৫০ কমিশন দেয়। এই কমিশন গুলো কোম্পানি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রকমের কমিশন চেঞ্জ করে থাকে। আমি হিসাব করে দেখলাম ভালোই খারাপ না। আপনি যদি সততার সাথে বিজনেস করেন ভালো করতে পারবেন। এমন অফার এয়ারটেলেও আছে। কোম্পানির যারা এসআর আছে তারা আপনাকে লিস্ট দিবে। এবং সেই লিস্টে বিস্তারিত লেখা থাকবে যে আপনি এত টাকা লোড দিলে আপনি কমিশন পাবেন যা আপনি সাথে সাথেই পাবেন।

সিম বক্রি সাথে কমিশনঃ

সিম বিক্রিতেও ভালো লাভ আছে। আপনি গ্রামীনফোনের সিম বিক্রি ১৯১ টাকা। ১৯১ টাকায় যদি গ্রামীন সিম বিক্রি করেন এখানে কমিশন পাবেন ৬৩ টাকা। সাথে আরও ২টাকা কমিশন আছে তবে এটা কিন্তু আপডাউন হয়। আবার যেমন বাংলালিংক আছে এই মুহূর্তে খুচরা মূল্য ১৫০ টাকা এতে কমিশন পাবেন ১০০ টাকা এবং ৪৭ রিচার্জ করলে আরও ৫০টাকা। এরকম প্রতিদিন ২টা সিম বিক্রি করলে ২০০ টাকা লাভ থাকবে।

পজিশন মত দোকান করাঃ

আপনার প্রতিষ্ঠান বা দোকান যে এলাকাভিত্তিক বা যেখানে প্রতিষ্ঠা করেন না কেন আপনার অল অপারেটর মিলে যদি ১০০০০ টাকা সেল করতে পারেন তাহলে ২৭.৫০×১০=২৭৫ কমিশন পাবেন। আর আপনি যদি রেগুলার ২টা সিম বিক্রি করতে পারেন ২০০ টাকা পাবেন। আপনি যদি গরে ১০০০০ টাকা সেল করতে পারেন এবং সাথে যে প্যাকেজ গুলা আছে দিতে পারলে ভালো লাভ থকবে।
আপনাকে টার্গেট করতে হবে যেন প্রতিদিন ১০০০০টাকা সেল হয়। এমন একটা পজিশনে যেতে হবে। হ্যা প্রতিদিন যদি ১০০০০ সেল না হয় আপনার লাভাংশ কমে আসবে। আপনি হিসাব করে দেখুন যদি সেল ভালো হয় তাহলে কমিশন পাবেন সেল নাহলে আপনি কমিশন পাবেন না।

আর যদি এককভাবে দোকান করতে চান তাহলে শুধু ফ্লাক্সিলোড করে পুশাতে পারবেননা। এককভাবে একটা দোকান বা প্রতিষ্ঠা করা এই মুহূর্তে সোটাপ। কারন এক সময় ছিল তবে এখন সেরকম ব্যপসা নাই। তবে এর সাথে যদি আপনি বিকাশ রাখতে পারেন আর ডাচবাংলা রাখতে পারেন বিভিন্ন কোম্পানি রাখতে পারেন। শুধু আপনি যদি ফ্লাক্সিলোড এবং সিম বিক্রি করেন তাহলে আপনি পুশাতে পারবেন না। আসলে বর্তমান এসময়ে ১০০০০ টাকা সেল করতে হলে কিন্তু ভালো পজিশন লাগবো ভালো সেলার হযতো হবে। সেজন্য এই মুহূর্তে আপনার যদি কোন ব্যবসা থাকে সে ব্যবসার পাশাপাশি ডাচ বাংলা রকেট বিকাশ করতে পারবেন, এটা কোন ব্যবসার সাথে করবেন তাহলে ভালো হবে। এটা আপনি যাদি একক ভাবে বসেন যেমন শুধু ফ্লেক্সিলোড সিম বিক্রি তাহলে ব্যবসাটা আপনি সহজে করতে পারবেন না পুশাতে পারবেননা।

তবে কিছু কিছু পজিশন আছে যেখানে আপনি মনে করেন চলবে, ১০০০০টাকা সেল হবে তাহলে আপনি করতে পারেন। আর যদি প্রতিদিন আপনারা ১০০০০ টাকা সেল করতে না পারেন তাহলে একক ভাবে বিজনেস টা করা যাবেনা। কারন আপনি যদি পার্ডে ৪০০-৫০০ টাকা ইনকাম করতে না পারেন তাইলেতো আপনাদের সংসার চলবেনা। সেই হিসেবে যদি আপনারা দেখেন কোথাও ১০০০০ সেল হয় তাইলে আপনারা একক ভাবে করতে পারেন। আর যদি না হয় একক ভাবে করার প্রয়োজন নেই, হ্যা যদি মদিখানার দোকান থাকে বা যে কোন দোকানের সাথে আপনি এটা করতে পারেন। আর যদি না হয় তাহলে এককভাবে এটা করা প্রয়োজন নাই। এভাবে করতে পারেন যদি দোকান থাকে বা যে কোন দোকানের সাথে, মানে এটা আউটসোর্সিং এর মতো আপনার একটা ব্যবসা আছে সাথে এটা যোগ দিতে পারেন।

সকল সিমের কাস্টমার কেয়ার নাম্বার – জিপি, বাংলালিংক, রবি, এয়ারটেল, টেলিটক,…

শেষ কথঃ আবারও বলতে চাই ব্যবসা করবেন আপনি জেনে শুনে বুঝে করবেন আমার আর্টিকেল দেখে বা আমার কথা শুনে নয়। আপনি আগে বোঝেন যে ব্যবসা করা যাবে কিনা তারপরে আপনি সিদ্ধান্ত নিবেন। আমি আসা করি বিজনেস আইডিয়া সম্পর্কে যথেষ্ট আইডিয়া দিতে পেরেছি আপনাদেরকে।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *