গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন দ্রুত পাওয়ার জন্য – পরীক্ষিত কৌশল !


0

গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন, গুগল অ্যাডসেন্স সর্বাধিক অর্থ প্রদান এবং সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য প্রাসঙ্গিক বিজ্ঞাপন প্ল্যাটফর্ম। প্রথমে একমাত্র চ্যালেঞ্জ হ’ল তাদের দ্বারা অ্যাডসেন্স অনুমোদিত করা। অ্যাডসেন্স কীভাবে দ্রুত অনুমোদন  পাবেন তা এখানে আলোচনা করা হলো –

আপনি যদি কোনও ব্লগ শুরু করে থাকেন এবং এখন ভাবছেন যে কীভাবে আপনি এটি থেকে নগদ অর্থ উপার্জন করতে পারেন তাহলে আপনি সঠিক জায়গা এসেছেন।

অ্যাডসেন্স আপনাকে যে কোনও ওয়েবসাইট থেকে অর্থোপার্জনে সহায়তা করে যদিও এমন কিছু নিস রয়েছে যা গুগলের দ্বারা অনুমোদিত নয় যা আমি নীচে আলোচনা করেছি।

অ্যাডসেন্স অনুমোদন  পাওয়ার জন্য প্রথমে আপনাকে একটি ভালো মানের ব্লগ/ওয়েব সাইট তৈরি করতে হবে আপনি যদি “ওয়ার্ডপ্রেস বা ব্লগের জন্য অ্যাডসেন্স অনুমোদন করাতে চান” তবে এই টিউটোরিয়ালটি অবশ্যই আপনাকে সহায়তা করবে।

লক্ষ লক্ষ পেজ ভিউ সহ আপনার সাইটটি ছোট বা বিশাল কিছু নয়, অ্যাডসেন্স সর্বদা আপনার ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য প্রস্তুত কিন্তু এর জন্য আপনাকে তাদের পলিসি মেনে কাজ করতে হবে তাহলেই আপনি  অ্যাডসেন্স পবেন।

এখন আপনার ইনকাম সরাসরি তিনটি বিষয়ের উপর নির্ভরশীল:

১. রেভিনিউ অপ্টিমাইজেশন

২. ওয়েবসাইটের নিস

৩. ট্রাফিক

আপনার সাইটের নিস অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কিছু নিস আছে যার মধ্যেমে বেশি cpc মানে বেশি ইনকাম করা সম্ভব, এবং কিছু নিস আছে বেশিরভাগ সময় কম cpc মানে কম ইনকাম হয়। এজন্য আপনাকে সঠিক নিসটি বাছাই করে নিতে হবে।

আপনি হয়তো গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন পাওয়ার জন্য অনেক চেষ্টা করেছেন কিন্তু তারা  বারবার  প্রত্যাখ্যান করছে আজ আমি আপনাকে কিছু হিডেন টিপস দেব যার মাধ্যমে আপনার অ্যাডসেন্স দ্রুত  অনুমোদিত হতে সহায়তা করবে। এই আর্টিকেল শুধু মনোযোগ সহকারে পড়ুন এবং সমস্ত নির্দেশাবলী অনুসরণ করুন।

গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন  ২০২০

অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টের জন্য আবেদন করার আগে আপনার মনে রাখা উচিত এমন সমস্ত বিষয় আমি উল্লেখ করেছি।

আমি দেখেছি অনেকেই ৭দিনে ৫দিনে ২-৩ দিনের মধ্যেও অ্যাডসেন্স অনুমোদন পেয়েছে যেমন আমি নিজেই তার প্রমাণ আর এর পেছনে রয়েছে কঠোর পরিশ্রম। আজ আমি আমার এই অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে শেয়ার করবো যাতে করে আপনারা দ্রুত অ্যাডসেন্স অনুমোদন পতে পারেন।

আপনাকে অবশ্যই গুগলের সকল পলিসি অনুসরণ এবং মেনে চলতে  হবে। আপনি ইতিমধ্যে আবেদন করেছেন কিন্তু অনুমোদন পাননি  আপনি আবার আবেদন করার আগে নীচে উল্লিখিত সমস্ত কিছু ঠিক করেছেন কিনা তা নিশ্চিত করুন:

নতুন এবং মানসম্পন্ন বিষয়বস্তু সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। একটি ব্লগে যখন কোয়ালিটি বিষয়বস্তু না থাকে? এ যেন অনুর্বর জমির মতো। আপনার সাইটটি নিয়মিত আপডেট করুন।

ইউনিক কনটেন্ট মূল বিষয়ঃ

গুগলকে আপনার সাইটটি ভাল ভাবে দেখাতে হলে আপনার সাইটে পর্যাপ্ত কনটেন্ট রয়েছে তা নিশ্চিত করার জন্য , ১০০০+ ওয়ার্ড এর মত কনটেন্ট কমপক্ষে ১৫-২০ টি আর্টিকেল থাকতে হবে।

আর্টকেল অবশ্যই সঠিক ও নির্ভুল বানান এবং ফর্ম্যাট সহ ভালভাবে লিখতে হবে। এটি একটি! দুর্দান্ত অ্যাডসেন্স অনুমোদনের কৌশল। নীচে কিছু বিষয় মনে রাখতে হবে:

H1, H2, H3, H4, ইত্যাদির মতো উপযুক্ত শিরোনাম যুক্ত করুন
শিরোনাম গুলি আপনার সাইটের সামগ্রীর শ্রেণিবিন্যাস দেখায়, অর্থাত একবার মাত্র H1, প্রধান শিরোনামগুলি সংজ্ঞায়িত করতে H2, উপ-শিরোনামের জন্য H3 এবং উপ-শিরোনামের জন্য H4 ব্যবহার করুন। বড় বাক্য এবং অনুচ্ছেদে লেখার পরিবর্তে আর্টিকেল টি ছোট পেরা পেরা করে লিখুন ভাগ করুন ৩-৪ দৈর্ঘ্যের অনুচ্ছেদের সাথে প্রয়োজনে ছবি ব্যবহার করুন। Seo এর  জন্য ALT ট্যাগ ব্যবহার করুন। আপনার আর্টিকেল সুন্দর্য দেখাতে উপযুক্ত স্টাইলিংয়ের  Bold আন্ডারলাইন ইত্যাদী প্রয়োজনীয় স্যামবোল ব্যবহার করুন।

কিছু নিস সাইট রয়েছে যা গুগল অনুমদন দেয় না। আপনার যদি নীচের বর্ণিত নিস সাইটের সাথে সম্পর্কিত বিষয়বস্তু থাকে তবে অ্যাডসেন্স অনুমোদিত হওয়ার জন্য এটি সরিয়ে ফেলা ভাল:

অ্যাডাল্ট / অশ্লীল / যৌন সামগ্রী
হ্যাকিং / ক্র্যাকিং / ওয়ারেজ
অস্ত্র এবং বন্দুক
জুজু / জুয়া
ফিশিং / ওষুধ ও ফার্মাসি
অন্য কোনও অবৈধ জিনিস

যদি আপনার সাইটটি উল্লিখিত যে কোনও বিষয়ের উপর ভিত্তি করে থাকে তবে আপনি অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন না করাই ভাল। কারণ আপনি এভাবেই আপনার অ্যাকাউন্টটি নিষিদ্ধ করাতে চলেছেন। আপনার যদি কিছু নির্দিষ্ট বিষয়বস্তু থাকে যা এই নিসের সাথে সম্পর্কিত, তবে আপনার সাইট থেকে সরিয়ে ফেলা ভাল।

ওয়েবসাইটের গতি এবং স্ট্রাকচারঃ

বর্তমানে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ছে। এর কারণে, গুগল আশা করে আপনার সাইটটি দ্রুত লোড হবে, বিশেষত মোবাইল ডিভাইসে।

গুগলের বিনামূল্যে  পেজস্পিড  টুলস,  অন্তর্দৃষ্টিগুলির সাথে আপনার সাইটটি পরীক্ষা করুন। এই সরঞ্জামটি আপনার ওয়েবসাইটটিকে বিশ্লেষণ করে এবং লোডের সময়ের উন্নতি করতে আপনার সাইটের  কি করা উচিত সমস্ত সম্ভাব্য পরিবর্তনগুলির পরামর্শ দেয়।

উভয় ডেস্কটপ এবং মোবাইল পৃষ্ঠা বিশ্লেষণে কমপক্ষে 80 স্কোর করার চেষ্টা করুন। আপনার স্কোর যত বেশি হবে তত দ্রুত আপনার সাইটের লোড হবে। সামগ্রিকভাবে, একটি সুন্দর প্রিমিয়াম থিম দীর্ঘমেয়াদে আপনার সাইটের জন্য সর্বদা উপকারী।

আপনার যদি ওয়ার্ডপ্রেস সাইট থাকে তবে আমি বলবো মার্জিত রিসপন্সিভ থিমগুলি ব্যবহার করুন।
গুগল অ্যানালিটিক্স এবং সার্চ কনসোল ইন্টিগ্রেশন গুগল আপনার সাইটের সম্পর্কে যত বেশি জানবে, অ্যাডসেন্স অনুমোদনের জন্য আপনার সম্ভাবনাগুলি তত ভাল।

গুগল অ্যানালিটিক্স এ আপনার সাইট এড করে ট্র্যাকিং কোডটিকে আপনার সাইটে বসিয়ে এবং এর মাধ্যমে আপনি আপনার সাইটের সমস্ত ট্র্যাফিক এবং পারফরম্যান্সের পরিসংখ্যান দেখতে পারবেন। যেমন ট্র্যাফিক পর্যাপ্ত কিনা তা বিশ্লেষণ করতে এছাড়াও, তারা গুগল আপনার সাইটের ট্র্যাফিক উত্স ট্র্যাক করতে পারে।

ট্র্যাফিক ফর্মুলাঃ

আপনার সাইটে যদি ট্রাফিক না থাকে তাহলে অ্যাডসেন্স অনুমোদন পেলেও ভালো মানের আর্নিং না হবার কারণে হতাস হয়ে যাবেন তখন আর অ্যাডসেন্স ভাল লাগবে না , সুতরাং প্রথম থেকেই ভালমানের আর্নিং করতে হলে আপনাকে হিউজ পরিমান ট্রাফিক আনতে হবে ওয়েব এ মনে রাখবেন সাইটে যতবেশি ট্রাফিক আসবে ততবেশি ইনকাম হওয়ার সম্ভবনা থাকবে। আর এর জন্য আপনি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম,  পিন্টারেস্ট ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ট্র্যাফিক আনতে পারেন আর সার্চইঞ্জিন থেকে ভিজিটর আনতে হলে আপনাকে এসইও করতে হবে সার্চইঞ্জিন থেকে ভিজিটর আসাকে গুগল বেশি প্রাধান্য দেয় এবং অর্নিং cpc বেশি থাকে।

গুগল সার্চ কনসোল বা ওয়েবমাস্টার টুল্সগুলিতে আপনার সাইট যাচাই করুন।

আপনি এটি ব্যবহার করে গুগল সার্চ ফলাফল গুলিতে আপনার সাইটের কার্য সম্পাদন এবং বিশ্লেষণ করতে পারেন। আপনি অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করার আগে আপনার ওয়েবসাইটটি Google এ ইনডেক্স হয়েছে কিনা এবং আপনার সাইটের প্রত্যেকটা পেজ পোস্ট সঠিক ভাবে  ইনডেক্স হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করুন। সাইটম্যাপ তৈরি করুন।

টপ-লেভেল ডোমেইন (TLD) ব্যবহার করুনঃ

টপ লেভেল ডোমেইন যেমন .Com অথবা. Net অথবা .org এর মতো টপ লেভেল ডোমেইন নিন। সম্ভাব্যভাবে অ্যাডসেন্স দ্বারা অনুমোদিত হওয়ার সম্ভাবনাগুলি বাড়িয়ে তুলতে পারে।

টিএলডি (TLD) বিশ্বব্যাপী প্রযোজ্য ডোমেন এবং গুগল সাধারণত তাদের একটি উচ্চ অগ্রাধিকার দেয়। আপনার সাইটটি .in এর মতো কোনও দেশের নির্দিষ্ট ডোমেইনে নির্মিত হলে আপনার চিন্তার দরকার এমন কিছু নয়, যদি আপনি একটি নতুন ব্লগ শুরু করে থাকেন তবে একটি টিএলডি (TLD) করার চেষ্টা করুন।

গুগল অন্যান্য বিষয়গুলিও বিবেচনা করে, সুতরাং এটি আপনাকে কঠোর নিয়ম অনুসরণ করতে হবে না।

তাছাড়া, xyz.blogspot.com এর মতো ব্লগার সাবডোমেনগুলির জন্য অ্যাডসেন্স অনুমোদন পাওয়া আজকাল মোটেও সহজ নয়।

আমি আপনাকে পরামর্শ দেব একটু কষ্ট হলেও কিছু টাকা বিনিয়োগ করে কাজ শুরু করতে পারেন। তাহলে প্রথম থেকেই ভাল ফলাফল এবং দ্রুত অ্যাডসেন্স অনুমোদনের জন্য সহায়ক হবে। মাঝেমধ্যে হোস্টিং প্রভাইডাররা অনেক কম টাকায় ডোমেইন হোস্টিং দিয়ে থাকে আপনি এটা ফলো করে কিনতে পারেন আর আমি সাজেস্ট করবো যদি আপনার মাস্টার কার্ড থাকে তাহলে বাহিরের হোস্টিং প্রভাইডার কাছ থেকে নিতে পারেন বেটার হবে।

ডোমেন বয়সঃ

অ্যাডসেন্স প্রোগ্রামে আপনার গ্রহণযোগ্যতার সম্ভাবনাগুলিকে শক্তিশালী করতে আপনার ডোমেন টি কমপক্ষে ছয় মাস বয়স হলে ভালো হয়। তবে এই নিয়মটি সর্বদা প্রযোজ্য নয়।

যদি আপনি মনে করেন যে আপনার সাইটটি অল্প সময়ের মধ্যে জনপ্রিয়তা অর্জন করছে, তবে আপনি যে কোনও সময় অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারেন। অন্যান্য দেশে, এই বিধি বিদ্যমান নেই। অন্যান্য নিয়ম পূরণের সাথে সাথে আপনি অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

এছাড়াও চেক করুন: ওয়ার্ডপ্রেস রবোটস.টিএসটিএক্স ফাইল ব্যবহার করে গুগল অ্যাডসেন্স ক্রল ত্রুটিগুলি ঠিক করুন। আপনি আপনার ডোমেনটিকে যত বেশি বয়স করবেন, অ্যাডসেন্স অনুমোদনের সম্ভাবনা ততবেশি।

গুরুত্বপূর্ণ পেজ যুক্ত করুন!
কিছু প্রাসঙ্গিক পেজগুলি রয়েছে যা Google আপনার সাইটে সেগুলি আছে কিনা তা যাচাই করে। এই পেজগুলি নিম্নরূপ:

  • About Us (আমাদের সম্পর্কে)
  • Contact Us (যোগাযোগ করুন)
  • Disclaimer (দাবি পরিত্যাগী)
  • Privacy Policy (গোপনীয়তা নীতি)

এই পেজগুলি আবশ্যক রাখবে এবং আপনি অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করার আগে আপনার ওয়েবসাইটে এগুলি থাকা খুব দরকার।
প্রতিটি পেজের একটি নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য রয়েছে। পেজ তৈরির বিষয়ে Google আপনার লক্ষ্য কী তা বুঝতে Google কে সহায়তা করে।

যোগাযো পেজ তাদের বুঝায় যে একজন প্রকৃত ব্যক্তি সাইটটি পরিচালনা করছে এবং আপনি তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

অস্বীকৃতি পেজ Google কে আপনার সাইটের ব্যবহারের ফলাফলের জন্য আপনার দায়বদ্ধতার পরিমাণ বুঝতে সহায়তা করে।

এবং পরিশেষে, গোপনীয়তা নীতি পেজ আপনার সাইটের ব্যবহার কারীদের কাছ থেকে আপনি কী সংগ্রহ করেন এবং কেন তা Google কে বলে। অ্যাডসেন্স অনুমোদনের জন্য এটি অবশ্যই অনুসরণীয় কৌশল।

অর্গানিক ট্রাফিকঃ

যদি দেখেন আপনার সাইটটি কিছু অর্গানিক ট্র্যাফিক পাচ্ছে, তবে এর অর্থ হলো আপনার পেজগুলি গুগলে  ইন্ডেক্স হচ্ছে এবং Seo  করার জন্য কিছু কীওয়ার্ডের র‌্যাঙ্কিং করেছে।
আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাপ্লিকেশন অনুমোদনের জন্য এটি একটি ইতিবাচক লক্ষণ যা Google বিবেচনা করে।

উপরে উল্লিখিত বিষয়ে আপনি যদি  সাইটে গুগল অ্যানালিটিক্স ট্র্যাকিং কোড বসান তবে গুগল স্পষ্টভাবে আপনার ট্র্যাফিক দেখতে পাবে। আপনার সাইটে কতটা অর্গানিক ট্রাফিক আসবে তা এখন এটি আপনার উপর নির্ভর করবে আপনি যত বশে ধর্য সহকারে কাজ করবেন ততবেশি ফল পাবেন। আপনার সাইটটি প্রতিদিন কমপক্ষে 50 জন অর্গানিক ট্রাফিক আসছে কিনা তা নিশ্চিত করুন।

সর্বোত্তম উপায় হ’ল কীওয়ার্ড বাছাই করে আর্টিকেল লেখা। আর এই কীওয়ার্ড র্যাংক করলে আপনি প্রচুর অর্গানিক ট্রাফিক পাবেন।
গেস্ট পোস্টিং, ডিরেক্টরি সাবমিশন, ফোরামে অংশ নিয়ে ইত্যাদি দ্বারা মানসম্পন্ন ব্যাকলিঙ্কগুলি তৈরি করুন।

দ্রুত র‌্যাঙ্কের জন্য কম প্রতিযোগিতামূলক কীওয়ার্ডগুলি লক্ষ্য করুন। আপনি ধীরে ধীরে আপনার সাইটের অর্গানিক ট্র্যাফিকের বৃদ্ধি দেখতে পাবেন। অর্গানিক ট্রাফিক সহ একটি সাইট সর্বদা অ্যাডসেন্স অনুমোদনের জন্য যোগ্য হয়।

অ্যাডসেন্স সমর্থিত ভাষা ব্যবহার করুনঃ

অ্যাডসেন্স এখনো পর্যন্ত প্রতিটি ভাষা সমর্থন করে না। গুগল কেবলমাত্র কিছু নির্দিষ্ট ভাষা অনুমোদিত করে এর মধ্যে আমাদের বাংলা ভাষা রয়েছে।

অ্যাডসেন্স সমর্থিত ভাষা

যদি আপনার সাইটে এই সকল ভাষার মধ্যে কোন ভাষা থাকে তবে কেবলমাত্র আপনি অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

প্রয়োগ করার সময় 100% সঠিক তথ্য দিন এবার আপনি নিশ্চিত হয়ে গেলেন যে আপনার সাইটটি উপরে বর্ণিত সমস্ত মানদণ্ড পূরণ করে, অবশেষে অ্যাডসেন্স প্রোগ্রামের জন্য আবেদন করার সময় এসেছে। তবে আপনাকে এই পর্যায়েও যত্নবান হতে হবে। আপনি কেবল আবেদন ফর্মের কিছু পূরণ করলেই হবে না।

মাথায় রাখার জন্য নীচে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি দেওয়া হল:

অ্যাডসেন্স অনুমোদনের জন্য ভুল/মিথ্যা তথ্য পূরণ করে কখনও অ্যাডসেন্স ঠকানোর চেষ্টা করবেন না তাহলে ভবিষ্যতে নিজেই ঠকবেন।
একাধিক অ্যাকাউন্ট তৈরি করার চেষ্টা করবেন না অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনার নিজের Google অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করুন এর আগে অ্যাডসেন্স দ্বারা স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করা ওয়েবসাইটের জন্য আর কখনও আবেদন করবেন না নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি সঠিকভাবে আপনার অ্যাকাউন্ট / প্রদানকারীর নাম পূরণ করেছেন কারণ এটি পরে পরিবর্তন করা প্রায় অসম্ভব।

অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট কেবলমাত্র গুগল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে তৈরি করা যেতে পারে তার অর্থ আপনি কেবলমাত্র আপনার name@gmail.com ইমেল ঠিকানা ব্যবহার করতে পারেন।

গুগল ওয়েবমাস্টার নির্দেশিকাগুলি মেনে চলুন অ্যাডসেন্স কেবলমাত্র গুগলের মালিকানাধীন ওয়েব পরিষেবা নয়। গুগল সমগ্র বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত সাইট এবং সার্চ ইঞ্জিন।

আপনি যদি সক্রিয়ভাবে এই নির্দেশিকাগুলি অনুসরণ করেন তবে গুগলের মতে আপনার সাইট মনিটাইজেশন এবং র‌্যাঙ্কিংয়ের ক্ষেত্রে সর্বদা তাদের দ্বারা অনুগ্রহ পাবেন।

এখানে সম্পূর্ণ গুগল ওয়েবমাস্টার নির্দেশিকাগুলি একবার দেখুন।

অ্যাডসেন্স অনুমোদনের কোন নির্দিষ্ট সময় নেই। তবে অ্যাকাউন্ট সক্রিয়করণ ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে হয় আবার এটি কয়েক সপ্তাহ সময় নিতে পারে।

ব্লগার অ্যাডসেন্স অনুমোদনঃ
অন্য যে কোনও প্ল্যাটফর্মের মতো, একটি ব্লগার ব্লগও একই কৌশলগুলি ব্যবহার করে আপনাকে আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট অনুমোদনের সুযোগ পেতে পারেন।

টপ-লেবেল ডোমেনের এত ব্যয়বহুল নয় আপনি সর্বচ্চ ৮০০-১২০০ টাকার ভিতর পাবেন। আপনি যদি প্রফেশনাল ভাবে লং টাইম নিয়ে কাজ করতে চান তাহলে টপ লেবেল ডোমেইন বেটার হবে। এবং এটি আপনাকে সর্বদা দীর্ঘমেয়াদে সহায়তা করবে। একটি ডোমেন নাম কিনুন এবং এটি আপনার ব্লগার বা ব্লগস্পট ব্লগে যুক্ত করুন।

এছাড়াও, আপনার ব্লগার ড্যাশবোর্ডের মাধ্যমে ব্লগস্পট ডোমেইন নিয়ে কখনও অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করবেন না। গুগল যদি এই জাতীয় অ্যাকাউন্ট অনুমোদন করে তবে তা কেবল ব্লগারে সীমাবদ্ধ থাকবে। আপনি এটি আপনার ব্লগার সাইটগুলি ছাড়া অন্য কোথাও ব্যবহার করতে পারবেন না। এই জাতীয় অ্যাকাউন্টটি “স্ব-হোস্টেড অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট” হিসাবে পরিচিত

আমি উপরে উল্লিখিত বিভিন্ন পয়েন্টগুলির সাহায্যে আপনাদের অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টটি যাতে করে দ্রুত অনুমোদন পান সেভাবে বুঝতে চেষ্টা করেছি। আমি ব্যক্তিগতভাবে এই কৌশলগুলি অনেকবার চেষ্টা করেছি এবং দ্রুত অ্যাডসেন্স অনুমোদন পেয়েছি। প্রথমত, আমি উপরে উল্লিখিত সমস্ত কিছু প্রয়োগ করে আমার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট অনুমোদন পেয়েছি।

এটি নিছক ভাগ্য নয় তা নিশ্চিত করার জন্য, আমি আমার বন্ধুকেও গাইড করেছিলাম এবং তিনি তার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টটি আবেদনের কিছুদিনের ভিতর অনুমোদন পেয়েছেন।

সুতরাং, এই আর্টিকেলে দেওয়া পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুন। আপনার যদি এই টিউটোরিয়ালের কোনও অংশ সম্পর্কিত কোনও সন্দেহ বা প্রশ্ন থাকে তবে নীচে কমেন্ট বক্সে একটি মন্তব্য বিনা দ্বিধায় করুন। হ্যাপি ব্লগিং ।


Like it? Share with your friends!

0

0 Comments

Your email address will not be published. Required fields are marked *