বিকাশে পাওয়া যাবে ডিজিটাল ব্যাংক ঋণ-তাৎক্ষণিক ঋণ পাচ্ছেন বিকাশের গ্রাহকরা!

জরুরি প্রয়োজনে সিটি ব্যাংকের জামানতবিহীন ডিজিটাল ঋণ মিলবে বিকাশে। দেশে প্রথমবারের মতো কোনও বাণিজ্যিক ব্যাংক, যে কোনও সময় যে কোনও স্থান  থেকে মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে তাৎক্ষণিক ঋণ বিতরণ পরিষেবা চালু করেছে। প্রাথমিকভাবে এটি পাইলট প্রকল্পের আওতায়, সীমিত সংখ্যক নির্বাচিত বিকাশ অ্যাপ গ্রাহকরা সর্বোচ্চ ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত সিটি ব্যাংকের এই ডিজিটাল ঋণ গ্রহণ করতে পারবেন। আর্থিক অন্তর্ভুক্তির কার্যকর সম্প্রসারণের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদনক্রমে ব্যাংক ঋণকে আরও বেশি লোকমুখী করার জন্য এই প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে প্রযুক্তির সহায়তায় ।

প্রকল্পটির সফল সমাপ্তির পরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদনক্রমে, ঋণ পাওয়ার উপযুক্ত বিকাশ গ্রাহকদের জন্য সিটি ব্যাংক এই পরিষেবাটি আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করবে। ঋণ নেওয়ার পর তিন মাসে, গ্রাহকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট থেকে সমান পরিমাণ তিন কিস্তিতে নির্ধারিত তারিখে স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিশোধ হয়ে যাবে। গ্রাহকরা নির্ধারিত তারিখের আগে এসএমএস এবং অ্যাপের মাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাবেন।

বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড করুন

বিভিন্ন স্তরের লোকেরা বিভিন্ন সময়ে অর্থের জরুরি প্রয়োজন মেটাতে এখনও উচ্চ সুদের হারে অনানুষ্ঠানিক খাত থেকে ঋণ নিতে বাধ্য হয়। অনেক ক্ষেত্রে অর্থ জোগাড় করতে না পারায় তারা সমস্যায় পড়ে। এছাড়াও, তাদের আরও অনেক কারণে ঋণ প্রয়োজন হয়। সিটি ব্যাংকের এই ডিজিটাল ঋণ এ জাতীয় চাহিদা পূরণ করে প্রান্তিক মানুষ, ব্যবসায়ী ও পেশাদারসহ সকল শ্রেণির গ্রাহকের জীবনমান উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা পালন করবে ইনসা আল্লাহ।

পাইলট প্রকল্পে ঋণ গ্রহণের জন্য নির্বাচিত গ্রাহকরা তাদের বিকাশ অ্যাপটিতে ঋণ বা লোন আইকনটি দেখতে পাবেন। ঋণ গ্রহণের জন্য, গ্রাহককে তার ই-কেওয়াইসি ফর্মের (নো-ইয়োর কাস্টমার ফর্ম) বিকাশে দেয়া তথ্য সিটি ব্যাংককে দেয়ার সম্মতি দিতে হবে। এরপরে আপনার ঋণের পরিমান এবং নিজের গোপন পিন দিয়ে সাথে সাথেই বিকাশ অ্যাকাউন্টে ঋণের টাকা পেয়ে যাবেন। এই ঋণের সঙ্গে প্রযোজ্য সুদ ও অন্যান্য বিধিবিধান প্রতিপালিত হবে বাংলাদেশে ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী ।

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি সংস্থাগুলির অন্যতম, আলিবাবা গ্রুপের অনুমোদিত ‘অ্যান্ট ফিনান্সিয়াল’ চীন, ভারত, ফিলিপাইন সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ জাতীয় ঋণ প্রকল্পগুলিতে এআই (আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স) প্রযুক্তির মাধ্যমে ক্রেডিট অ্যাসেসমেন্ট  সুবিধা দিয়ে থাকে। বিশ্বখ্যাত এই ফিনটেক সংস্থা এই প্রকল্পে গ্রাহকদের ক্রেডিট মূল্যায়নও করবে।

উপরে উল্লেখ্য যে সিটি ব্যাংকের এই ডিজিটাল ঋণ দাতারা নিয়মিত ঋণ পরিশোধ করছেন কিনা তা মূল্যায়ন করা হবে। পরবর্তী যে কোনও ঋণের ক্ষেত্রে এই মূল্যায়ন বিবেচনা করা হবে। কোনও গ্রাহক ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হলে সিটি ব্যাংক নিয়ম অনুযায়ী ঋণ খেলাপির তথ্য বাংলাদেশ ব্যাংককে জানাবে।

প্রকল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করে সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাসরুর আরেফিন  বলেছেন, আমরা সবসময় গ্রাহকদের প্রয়োজনের কাছাকাছি থাকার চেষ্টা করি। আমাদের দেশে অনেকের, বিশেষ করে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের হঠাৎই অর্থের প্রয়োজন হয়। এই ডিজিটাল ঋণের সেবা কীভাবে তাদের কাছে আরও সহজলভ্য করা যায়, যাতে তারা সেই অর্থটি সহজেই ব্যবহার করতে পারে সে বিষয়টি মাথায় রেখে এই ডিজিটাল ঋণের পথ চলা। আমরা বিশ্বাস করি যে এই পাইলট প্রকল্পটি একটি পরীক্ষামূলক এবং আমরা এই প্রকল্পে প্রাপ্ত অভিজ্ঞতা উন্নত করে গ্রাহকের আরও ভাল পরিষেবা আনতে পারি।

এই উদ্যোগের বিষয়ে মন্তব্য করে বিকাশের সিইও কামাল কাদির বলেছেন যে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলি কার্যকর মানের ডিজিটাল আর্থিক প্ল্যাটফর্ম এবং বিকাশের মতো বিশাল গ্রাহক বেসকে জীবনমানের মান উন্নয়নে এবং সকল শ্রেণির আর্থিক অন্তর্ভুক্তিতে শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে ব্যবহার করে সৃজনশীল নতুন পরিষেবা চালু করতে পারে। প্রান্তিক সহ মানুষ সিটি ব্যাঙ্কের ডিজিটাল ঋণ প্রকল্প এটির একটি উদাহরণ। জরুরি পরিস্থিতিতে অবিলম্বে জামানতবিহীন এই ঋণ প্রান্তিক মানুষ, তরুণ সমাজ, প্রান্তিক ব্যবসায়ীদের জন্য বিপদের বন্ধু হতে পারে।

তথ্যটি বিকাশের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকেও জানতে পারেন

শেষ কথাঃ ইসলামে সুদকে হারাম বলা হয়েছে, যেমন কারো বিপদে আপনি অর্থ দিয়ে তাকে সাহায্য করলেন কিন্তু তার বিনিময়ে পরবর্তীতে অসল সহ অতিরিক্ত অর্থ নিলেন এটাই সুদ, এবং আপনি কারো কাছ থেকে টাকা নিলেন এবং পরবর্তীতে সে আপনার কাছ থেকে আসল টাকা সহ অতিরিক্ত টাকা নিলো তাহলে সে একই গুনাহ করলো। সুতরাং কারও কাছে ঋণ থাকলে পরিশোধ করতে হবে এবং সুদ বা এনটেরেস্ট থেকে বিরতো থাকতে হবে।

Add a Comment

Your email address will not be published.