করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কেন বেশি ধূমপায়ীদের

করোনাভাইরাস অনেক সময় শ্বাসনালীর মাধ্যমে ফুসফুসে প্রবেশ করে। এই ভাইরাস দ্বারা ফুসফুস সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়। ফলে শ্বাসকষ্ট হয়।

করোনা হলে স্বাস্থ্য ঝুঁকি বেড়ে যায় যারা ধূমপান করেন তাদের। কারণ ধূমপান ফুসফুসকে ক্ষতি করে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞদের মতে, যারা ধুমপান করেনা তাদের তুলনায় যারা ধূমপান করে তাদের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রায় ১৪ গুণ বেশি জটিল হতে পারে।

এক্ষেত্রে জাতীয় বক্ষব্যাধি ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের বক্ষ বিশেষজ্ঞ ডা. আরেফিন খান বলেছেন যে ধূমপায়ীদের মধ্যে অন্যেদের তুলনায় করোনার ঝুঁকি বেশি থাকে। এটির কারণ ধূমপান তাদের ফুসফুসের কার্যকারিতা এবং রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমতে থাকে। একইভাবে, কোনও জীবাণু সহজেই শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে শ্বাসনালীতে প্রবেশ করতে পারে।

তিনি বলেছেন, যখন ধূমপানকারী দোকান থেকে সিগারেট কিনে খান, তাখন স্বাস্থ্যবিধি নিয়ম মানছেন না। অতয়েব, করোনা ছরাতে পারে এই কিনে খাওয়া সিগারেট এর মাধ্যমে।

এই বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন যে ধূমপান করেন তাদের যে কোনও ধরণের ভাইরাস সহজেই শ্বাসে প্রবেশ করতে পারে। এবং ফুসফুসের প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হওয়ার কারণে সহজেই যে কোনও ভাইরাস এবং রোগে আক্রান্ত হতে পারে।

এখন কি জরা উচিত

করোনার কারণে ধূমপান ছাড়বেন বিষয়টি কেবল এমন নয়। সুস্থ থাকার জন্য আপনাকে অবশ্যই ধূমপান ত্যাগ করতে হবে। যেহেতু করোনার এই মুহুর্তে বেশি ঝুঁকি রয়েছে তাই ধূমপান থেকে এরিয়ে চলা বা জরুরি ভাবে ছাড়া উচিত। যদি আপনি ধূমপান ছেড়ে দেন তবে আপনার অস্বাভাবিক রক্তচাপ সঙ্গে সঙ্গেই স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে এবং আপনার হৃদয় সতেজ হবে।

এছাড়াও রক্তে কার্বন মনোক্সাইডের পরিমাণ কয়েক ঘন্টার মধ্যে হ্রাস পাবে। এবং মাত্র কয়েক দিনের মধ্যে, ফুসফুসের কার্যকারিতা বাড়তে শুরু করবে এবং সুস্থতা অনুভব করতে পারবেন। ধন্যবাদ।

Add a Comment

Your email address will not be published.